Dainik Sangbad – দৈনিক সংবাদ
Image default
FEATURED ট্রেন্ডিং

যৌনতার চাঞ্চল্যকর ব্যবসা: কয়েকটি মেয়ে এসে হাজার টাকা চেয়েই বলল- এখনই সম্পর্ক কর

শাহদরা জেলার আনন্দ বিহারে একটি স্পা ও ম্যাসাজ সেন্টারের আড়ালে চলমান একটি সেক্স র‍্যাকেটের পর্দা ফাঁস করেছে পুলিশের একটি যৌথ দল। এ ঘটনায় দুই কিশোরীসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত অভিযুক্তরা হলেন আয়ম (৩০) এবং বিনয় গুপ্তা (৩২) এবং আরো দুটি মেয়ে। এরই মধ্যে এপ্রিল ও জুলাই মাসে এ দুটি সেন্টারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। কিন্তু এসব লোকজন আবার স্পা ও ম্যাসাজ সেন্টারের নাম পরিবর্তন করে ব্যবসা শুরু করে। বর্তমানে পুলিশ স্পা ও ম্যাসাজ সেন্টার দুটিই সিল করার সুপারিশ করেছে। এই মামলায় আজা স্পা সেন্টারের মালিক পারমিন্দর নামে একজনকে খুঁজছে পুলিশ। তার খোঁজে অভিযান চালাচ্ছে আনন্দ বিহার থানার পুলিশ।

শাহদরা জেলার উপ-পুলিশ কমিশনার আর. সত্যসুন্দরম বলেন, মঙ্গলবার বিশেষ কর্মীদের দল তথ্য পায় যে আনন্দ বিহারের দুটি ভিন্ন জায়গায় স্পা ও ম্যাসাজ সেন্টারের আড়ালে চলছে যৌন র‌্যাকেটের ব্যবসা। দয়ানন্দ বিহারে অজা স্পা অ্যান্ড ম্যাসেজ সেন্টার এবং ক্রস রিভার মলে ব্লু হেভেনের নামে স্পা সেন্টার চালু ছিল। সঙ্গে সঙ্গে স্পেশাল সেল ও স্থানীয় পুলিশের যৌথ টিম গঠন করা হয়।

Up teacher arrested for smashing students face with cake

দুই জায়গায় ভুয়া গ্রাহক পাঠানো হয়। সেখানে তাদের কাছে বডি ম্যাসাজের নামে এক হাজার টাকা দাবি করা হয়। এরপর কিছু মেয়েকে ভুয়া খদ্দের দেখিয়ে সম্পর্ক করার কথা বলা হয়। বিনিময়ে তার কাছ থেকে আরও এক হাজার টাকা দাবি করা হয়। পুলিশ ইনফর্মার জানিয়েছে এই স্পা সেন্টারের আড়ালে বেশ কিছু মহিলা কে দিয়ে গ্রাহককে প্রলুব্ধ করা হয়। তিনি যখন সেখানে ছিলেন হঠাৎ কিছু মেয়ে আসে এবং হাজার টাকা চেয়েই বলল- এখনই সম্পর্ক কর। টাকা দেওয়ার পর ভুয়া গ্রাহক পুলিশের দলকে ইশারা করলে উভয় স্থানে অভিযান চালিয়ে স্পা ও ম্যাসাজ সেন্টারের ম্যানেজার ও দুই মেয়েকে আটক করা হয়।

উভয় ক্ষেত্রেই আনন্দ বিহারে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তদন্তের সময় পুলিশ জানতে পেরেছিল যে আজা স্পা সেন্টারটি মানসরোবর পার্কের বাসিন্দা পারমিন্দর চালাচ্ছেন। পুলিশ স্পা এবং ম্যাসাজ সেন্টার দুটি সিল করার সুপারিশ করেছে। তদন্তে পুলিশ জানতে পারে, এ-ওয়ান স্পা নামে দ্য ব্লু হ্যাভেন নামে একটি স্পা সেন্টার চলছে। ২৮ এপ্রিল এখানে অভিযান চালানো হয়।

সে সময় এখানে সেক্স র‍্যাকেটও চলছিল। একইভাবে, গত ২১শে জুলাই আজা ম্যাসেজ সেন্টারেও অভিযান চালানো হয়। পুলিশ এবং অন্যান্য সরকারী সংস্থাকে ফাঁকি দেওয়ার জন্য, তারা আবার ম্যাসেজ এবং স্পা সেন্টারের আড়ালে সেক্স র‍্যাকেট শুরু করে দেয়। গ্রেফতারকৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

Related posts

বিয়ের ২০ দিন যেতে না যেতেই রহস্য ফাঁস বউয়ের! শুনেই পুলিশের কাছে দৌড়ালেন স্বামী

News Desk

মাছ অথবা কোনো প্রাণী নয়, মন্দিরের প্রসাদ খেয়েই ৭০ বছর কাটিয়েছে ‘নিরামিষাশী’ কুমির

News Desk

কয়েকটি ভুলে বাতিল হয়ে যাচ্ছে সরকারি প্রকল্প লক্ষীর ভান্ডার ফর্ম! আবেদনের আগে জেনে নিন

News Desk