Dainik Sangbad – দৈনিক সংবাদ
Image default
FEATURED রাজনীতি

নাকতলার পুজোয় দেখেছি, এর বাইরে চিনি না’, অর্পিতার সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা ‘মানতে নারাজ’ পার্থ

শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারি ঘিরে টালমাটাল পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য রাজনীতি। ইডি খানা তল্লাশিতে পার্থ চ্যাটার্জির বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় এমন কিছু নথি যেখান থেকে খোঁজ মেলে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের অ্যাপার্টমেন্টের। তারপরের টুকু ইতিমধ্যে সমগ্র রাজ্যবাসী জেনে ফেলেছে। অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় কোটি কোটি টাকা। এমনকি এমন কিছু খাম যেখানে সরকারি শিক্ষা দপ্তরের উল্লেখ আছে। রাতারাতি সকলের মনে প্রশ্ন ওঠে কে এই অর্পিতা? এক সময় টলিউডে কাজ করা অর্পিতা পার্থ ঘনিষ্ঠ বলেই জানা যায়। কিন্তু কতটা ঘনিষ্ঠ সেটা চর্চার কেন্দ্রে বরাবর ছিল।

ইতিমধ্যেই ইডি সূত্রের খবর পুরো ৩৬০ ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায় নাকি জানিয়ে দিয়েছেন অর্পিতাকে সেই ভাবে চেনেনই না তিনি। তেমন কোন পরিচয় নাকি নেই তাদের। তার মানেটা কি দাঁড়ালো? অবাক সবাই!

বৃহস্পতিবার অর্পিতা মুখোপাধ্যায় ও পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন ইডি আধিকারিকরা। ইডি সূত্রে জানা গিয়েছে, সেই জেরা চলাকালীনই অর্পিতার সঙ্গে কোনো ধরণের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক অস্বীকার করেছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। ইডি আধিকারিকেরা পার্থকে প্রশ্ন করে, “অর্পিতাকে কি চেনেন?” উত্তরে পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, “না সেইভাবে চিনি না।” ইডির উল্টে জিজ্ঞেস করে তাহলে কীভাবে চেনেন? পার্থ উত্তর দেয়, “বহু মানুষ নানা দরকার আসেন আমার কাছে। এই ভাবেই একে দেখেছি। নাকতলার দুর্গা পুজোতেও দেখেছি।” পার্থকে ইডি আধিকারিকেরা প্রশ্ন করে, “অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে কোটি কোটি টাকা উদ্ধার হয়েছে, এই বিষয়ে জানেন?” পার্থর জবাব, “শুনেছি, তবে সেই টাকার সাথে আমার সম্পর্ক নেই।”

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের এই দাবি প্রকাশ্য আসার পর রীতিমতো ভ্রু কুঁচকেছেন সবাই। শান্তিনিকেতনের বাগান বাড়ী, যেটির নাম ‘অপা’। দলিলে তাদের নাম। অর্পিতার ড্রাইভার এর বয়ান। ২০১২ সাল থেকে পার্টনারশিপে বিজনেস, যার ব্যালান্স শিট পর্যন্ত প্রতিবছর তত্ত্বাবধান করা হয়েছে। অর্পিতার সমস্ত লাইফ ইন্স্যুরেন্স নমিনেশন এর পার্থর নাম, এছাড়াও ইডির কাছে অর্পিতার বয়ান যে ২০১৭ সালে পার্থবাবুর স্ত্রী মারা যাবার পর থেকে তাদের বন্ধুত্ব ঘনিষ্ঠ আকার নেয়, এত সব কিছুর পরেও কিভাবে তাদের সম্পর্ক গোটা টাই অস্বীকার করছেন পার্থ।

এটাই এখন বড় প্রশ্ন। ইডির ধারণা, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে সব কিছু লুকিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তদন্তকারীদের ভুল পথে চালনা করার একটি প্রচেষ্টা ছাড়া কিছুই না।

Related posts

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সেক্স ট্রাফিকিং এর সবচেয়ে বড় কেন্দ্র হয়ে দাড়িয়েছে ফেসবুক: রিপোর্ট

News Desk

৩ মাসের মেয়েকে প্রথমবার দেখতে ফিরছিলেন বাড়ি! ময়নাগুড়ির রেল দুর্ঘটনা কেড়ে নিল বাবার প্রাণ

News Desk

কুমারীত্ব পরীক্ষায় ব্যার্থ! মেয়ের পরিবারকে ১০ লাখ টাকার জরিমানা করলো খাপ পঞ্চায়েত

News Desk
0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x