Dainik Sangbad – দৈনিক সংবাদ
Image default
FEATURED ট্রেন্ডিং

পুরুষদের দেহব্যবসা করার জন্য মহিলারা ফোন করতেন! কেউ রাজি হলেই তার সাথে যা ঘটতো

দিল্লীর উত্তর জেলা বাওয়ানা সাইবার ক্রাইম “ইন্ডিয়ান গিগোলো” নামে একটি ভুয়ো কল সেন্টারের পর্দা ফাঁস করেছে। ভুয়া কল সেন্টারের মালিক গিগোলো (পুরুষ দেহ ব্যবসায়ী) বানানোর নামে লাখ লাখ টাকা প্রতারণা করেছে, ষড়যন্ত্র করেছে এবং গিগোলো বানানোর নামে অর্ধশতাধিক মানুষকে টার্গেট করেছে। ৮ জন মেয়ে এই কল সেন্টারে কাজ করত এবং এলোমেলো নম্বরে ফোন করে টাকা দিতে বলত। কল সেন্টারের মাস্টার মাইন্ডকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এর সঙ্গে জড়িত ৮ মহিলাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

এই কল সেন্টার থেকে ১২টি কীপ্যাড ফোন, একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন এবং ১৬টি নোটবুক পাওয়া গেছে। পুলিশ ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৭৪০ টাকার পেটিএম অ্যাকাউন্টটি ফ্রিজ করেছে। শুধু তাই নয় এখান থেকে যৌন শক্তিবর্ধক পিল ও স্প্রে উদ্ধার করা হয়েছে। তদন্তের সময় জানতে পারা গেছে যে অভিযুক্তরা প্রতারণার টাকা কালেক্ট করতে Paytm অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেছিল। সেই অ্যাকাউন্টটি ট্র্যাক করে এবং প্রযুক্তিগত নজরদারি বাড়িয়ে, পুলিশের টিম সন্দেহজনক লোকেশন সেক্টর-1 অবন্তিকা, রোহিনী, দিল্লিতে অভিযান চালায়। যেখানে একটি ভুয়া কল সেন্টারে সেক্স বর্ধক ওষুধ ও স্প্রে বিক্রির আড়ালে লোকেদের গিগোলো সার্ভিসে যোগ দিতে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছিল।

অভিযুক্ত মেহতাব ৮ জন মহিলাকে কল করার জন্য নিযুক্ত করে এবং জাস্ট ডায়াল এবং পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দেয়। টেলি কলার মহিলারা সেই নম্বরগুলিতে কল করতেন এবং তাদের যৌন শক্তিবর্ধক ওষুধ খেতে বলতেন। যদি কেউ দাবি করতেন যে তার সম্পূর্ণ যৌন ক্ষমতা আছে এবং এ ধরনের কোনো ওষুধের প্রয়োজন নেই, তাহলে অবিলম্বে টেলি কলার মহিলারা তাকে গিগোলো সেবায় যোগদানের জন্য বলতেন। সাথে সাথে এর জন্য কিছু চার্জ দিতে বলতেন এবং তারপরে রেজিস্ট্রেশন, বুকিং ও অগ্রিমের নামে প্রতারণা করা হতো তাদের সাথে।

২০২১ সাল থেকে এই জাল কল সেন্টারটি চালানো হচ্ছিল এবং সারা ভারতে অনেক লোককে প্রতারিত করা হচ্ছিল।

৫০০টি নম্বরে রান্ডম কল

রোহিনী সেক্টর-১ থেকে অতি গোপনে এই জাল কল সেন্টার চলছিল। মহিলারা দিনে প্রায় ৫০০টি নম্বরে রান্ডম (Random) কল করত, যার মধ্যে ৫০ থেকে ১০০ টি কল রিসিভ হত। ১০ থেকে ২০ জনকে গিগোলো হতে প্ররোচিত করলে ইনসেনটিভ ছিল। এরপর রেজিস্ট্রেশন, বুকিং অ্যামাউন্ট, অ্যাডভান্স ইত্যাদির নামে ওই ব্যক্তিদের সঙ্গে প্রতারণা করত। ভিকটিমদের প্রতারণার পর তারা তাদের নম্বর ব্ল্যাক লিস্ট করত। পুলিশ এখন এই ঘটনাটির পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করছে।

Related posts

বিষমকামী মহিলারা যৌন ইচ্ছা জাগায় কিভাবে? সমীক্ষায় উঠে আসল অদ্ভুত তথ্য

News Desk

আলিয়াকে বিয়ে করে কতোটা পাল্টেছে জীবন! দাম্পত্যের গোপন কথা জানালেন রণবীর কাপুর

News Desk

বর্ষায় ভীষণ চুল ঝড়ছে? রইল চুল পড়া রোধে সমাধান

News Desk