Dainik Sangbad – দৈনিক সংবাদ
Image default
ট্রেন্ডিং রাজনীতি

Breaking News! প্রয়াত রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় !

প্রয়াত সুব্রত মুখোপাধ্যায়। ৪ঠা নভেম্বর, কালী পুজোর দিন রাত ৯.২২ মিনিটে থেমে গেল তার জীবন প্রদীপ। কিছু দিন আগেই রাত বুকে ব্যথা, শ্বাসকষ্ট নিয়ে এসএসকেএমে ভর্তি হন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। ধমনীতে স্টেন্ট বসানো হলে পরেও তাঁর শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়। অবশেষে উডবার্ন ওয়ার্ডে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subrata Mukherjee Dead) ।

তিনি মারা যাওয়ার কিছুক্ষণ আগে হাসপাতলে তার শারীরিক অবস্থার কথা শুনে তাঁকে দেখতে এসএসকেএমে (SSKM Hospital) গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে নটা নাগাদ হাসপাতালে পৌঁছন মমতা (Mamata Banerjee)। কার্ডিওলজির আইসিসিউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন রাজ্যের পঞ্চায়েতমন্ত্রী (Panchayat Minister)। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁকে দেখতে এসএসকেএমে গিয়েছিলেন তার রাজনৈতিক সঙ্গী ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim), অরূপ বিশ্বাস (Arup Biswas), নির্মল মাজি (Nirmal Maji)।

মৃত্যুর সময় সুব্রত মুখপাধ্যায়ের বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। জানা গিয়েছে তার আগে থেকেই হার্টের জটিল সমস্যা ছিল। গত মে মাসে সিবিআই দ্বারা গ্রেফতারির পরে তাকে সেই রাতেই হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তখনই এই পরীক্ষা করে তার হার্টের সমস্যাগুলি ধরা পরে।

গত ২৫ অক্টোবর সকাল বেলা নিজের বাড়িতে থাকার সময় শারীরিক ভাবে অসুস্থ বোধ করেন সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subrata Mukherjee)। তড়িঘড়ি তাঁকে নিয়ে পৌঁছানো হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। সেখানে কার্ডিওলজি বিভাগে প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরেই তাঁকে আইসিইউ-তে ভর্তি করে চিকিৎসা চলছিল। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার সরোজ মণ্ডলের তত্ত্বাবধানে তাঁকে আইসিইউ-তে ভর্তি করা হয়। এরপর তাঁকে রাখা হয় নন ইনভেসিভ ভেন্টিলেশন বা বাইপ্যাপ সাপোর্টে। অক্সিজেনও সাপোর্টও দেওয়া হয়। ক্রমশ তাঁর শারীরিক অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হয়। মনে করা হয় বিপদ কাটল। গোয়া থেকে ফিরে মুখ্যমন্ত্রী দেখা করে কথা বলেন।

কিন্তু ফের জোরালো হার্ট অ্যাটাক হওয়ার পর ফের আশঙ্কাজনক অবস্থা হয় সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের (Subrata Mukherjee)। শারীরিক অবস্থার দ্রুত অবনতি হতে শুরু হওয়ায় তাঁকে আইসিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। সূত্র অনুযায়ী জানা যাচ্ছে, সম্ভবত বাথরুমে যাওয়ার সময় পড়ে যান তিনি। আর তার পরেই হার্ট অ্যাটাক হয় বর্ষীয়ান মন্ত্রীর। প্রশাসনের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে চিকিৎসকদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছিল। শ্বাসকষ্ট বাড়ায় উডবার্ন ওয়ার্ডের আইসিসিইউ-তে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। কিন্তু এতেও সুরাহা হয়নি বরং ক্রমশ অবস্থার অবনতি হতে থাকে। অবশেষে সেখানেই শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করলেন প্রবীণ রাজনীতিবিদ।

Related posts

সাপে কেটেছে এই রাগে পাল্টা সাপ কে কামড়ে দিল যুবক! ফল হল অবিশ্বাস্য

News Desk

আজ জন্মাষ্টমী, জানুন গোপালের পুজো কিছু রীতি যা করলে মনোবাসনা পূর্ণ হবে অবশ্যই

News Desk

করোনা থার্ড ওয়েভ হানা দেবে অগাস্টেই! কবে ছোঁবে সর্বোচ্চ সীমা: কি বলছে SBI -এর রিসার্চ রিপোর্ট

News Desk
0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x