Dainik Sangbad – দৈনিক সংবাদ
Image default
FEATURED ট্রেন্ডিং

বিশ্বের এই সব জেলে ‘নর পিচাশ’রা বাস করে, অন্য বন্দীদের মৃতদেহ পর্যন্ত খেয়ে ফেলে!

বিশ্বের প্রতিটি দেশের সরকার চেষ্টা করে যে সেই দেশে অপরাধের হার সর্বনিম্ন হোক। এ জন্য অনেক কঠোর নিয়ম প্রণয়ন করা হয়। যারা এই নিয়ম ভঙ্গ করে তাদের শাস্তি দেওয়া হয়। এই শাস্তি জরিমানা থেকে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বন্দীদের কারাগারে রেখে তাদের সংস্কারের সুযোগ দেওয়া হয়। কিন্তু আজ আমরা যে কারাগারের কথা বলতে যাচ্ছি, সেখানে বসবাসকারী বন্দিদের খুব কমই উন্নতি হয়। বরং জেলে থাকা অবস্থায় তারা আরও ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে। আমরা রুয়ান্ডার গীতারামা কারাগারের কথা বলছি।

গীতরামা কারাগারকে পৃথিবীর সেই স্থানগুলির মধ্যে একটি হিসাবে বিবেচনা করা হয়, যা নরকের সমান। রুয়ান্ডার রাজধানী কিগালিতে নির্মিত হয়েছিল এই নৃশংস জেল। এটি ১৯৬০ সালে নির্মিত হয়েছিল। প্রথমে এটি ব্রিটিশ শ্রমিকদের বসবাসের জন্য নির্মিত হয়েছিল। কিন্তু পরে তা কারাগারে রূপান্তরিত হয়। এই কারাগারের ধারণক্ষমতা ৪০০ বন্দির। তবে বর্তমানে এই কারাগারে সাত হাজারের কিছু বেশি বন্দি রয়েছে। কিন্তু বিচারে এই সংখ্যা কিছুই না। যখন রুয়ান্ডা গণহত্যা সংঘটিত হয়েছিল, তখন প্রায় ৫০,০০০ বন্দিকে এখানে বন্দী করা হয়েছিল।

অবস্থা খুবই খারাপ:

এই কারাগারে বন্দীদের সবসময় পশুর মতো ফেলে রাখা হয়। এখানে তাদের বসার জায়গা থাকে না। অনেক বন্দিকে টয়লেটে রাখা হয়। এ কারাগারে অনেক বন্দি নির্দোষ বলেও স্বীকার করেছেন কারা কমান্ডার। এর পরেও তাদের এভাবে নরক যন্ত্রণা ভোগ করতে হয়। তবে কিছু বন্দী ভয়ঙ্কর। তাদের সাথে পশুদের মত আচরণ করা হয়। জেল খাটার পরও এসব বন্দির উন্নতি হয় না। পরিবর্তে, তারা আরও ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে।

প্রতিদিন অর্ধ ডজন বন্দী মারা যায়:

দ্য রেড ক্রসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই কারাগারে থাকা বন্দীদের মধ্যে প্রতিদিন মারা যায় ৬ জন। বন্দীদের প্রতিদিন কম খাবার দেওয়া হয়। এ কারণে তারা নিজেদের মধ্যে মারামারি করে। অনেক বন্দী দুর্বলেদের খাবার ছিনিয়ে নিয়ে নিজেরাই খেয়ে নেয়। তারা অভিযোগ করলে তাদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। অনেক বন্দীও এমনটাও বলেছেন যে এই কারাগারে একজন বন্দী মারা গেলে তার লাশ অন্যরা খায়। akorra.com এর খবরে বলা হয়, কারাগারে বন্দীদের নামমাত্র খাবার দেওয়া হয়। এ কারণে অনেক সময় কিছু বন্দি জীবিত বন্দীর চামড়া দাঁত দিয়ে কেটে খেয়ে ফেলে।

Related posts

রাজপরিবারে পালিত হয় ব্রিটিশ রানীর দুটি জন্মদিন ,কেন এই অদ্ভুত নিয়ম? জেনে নিন

News Desk

দেশের গুপ্তচর সংস্থার প্রধানদের নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের, কি সেই সিদ্ধান্ত

News Desk

করোনাভাইরাস এর চোখরাঙানির মধ্যে কিছুটা স্বস্তি, বাড়লো অ্যাক্টিভ কেস

News Desk