Dainik Sangbad – দৈনিক সংবাদ
Image default
FEATURED ট্রেন্ডিং

‘আমাকে ভালোবাস, নাহলে শিরা কেটে ফেলবো! ভিডিও কলে হুমকি যুবকের, তারপর…

দিল্লি সংলগ্ন নয়ডায় এক প্রেমিকের এমনই এক কাণ্ড সামনে এসেছে, যা শুনে চমকে উঠলেন পুলিশকর্মীরাও। তথ্য অনুযায়ী, মেয়েটির প্রেমে পাগল এক যুবক প্রথমে মেয়েটিকে ভিডিও কল করে। তারপর তিনি তার প্রতি তার ভালবাসা প্রকাশ করেন। মেয়েটি রাজি না হলে সে ছুরি তুলে আত্মহত্যার হুমকি দেয়। এই ঘটনায় মেয়েটি রীতিমতো আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। এই ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

Up teacher arrested for smashing students face with cake

জানা গিয়েছে ভিডিও কলে অপর পাশের যুবক ছুরি তুলে এমন হুমকি দেওয়ার পর মেয়েটি ভয়ে ফোন কেটে দেয় এবং থানায় পৌঁছে আত্মহত্যার হুমকি দেওয়ার মামলা দায়ের করে। ঘটনাটি নয়ডার সেক্টর-৩৯-এর। পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগে ওই তরুণী জানিয়েছেন, মনোজ নেপালি নামে এক যুবক কয়েকদিন ধরে তাকে ফোন করে হয়রানি করে আসছিল। তিনি তার সাথে বন্ধুত্ব করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু মেয়েটি তার সাথে বন্ধুত্ব করতে চায়নি। প্রতিদিন এরকম ভাবে বিরক্ত করায় এমনকি ছেলেটির নম্বরও ব্লক করে দেয় তরুণী।

ওই তরুণী জানান, কিন্তু এতে লাভের লাভ কিছুই হয়নি। তাকে হয়রানি করা বন্ধ করেনি ওই যুবক যার নাম মনোজ নেপালি। মনোজ তাকে বিভিন্ন নম্বর থেকে ফোন করতে থাকে। মেয়েটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তা অগ্রাহ্য করতো। এরপর একদিন অপরিচিত নম্বর থেকে ভিডিও কল এলে মেয়েটি তা রিসিভ করে ফেলে। ফোন তুলতেই মনোজ তাকে প্রেমের প্রস্তাব দিতে শুরু করে। মেয়েটি তার প্রস্তাব অস্বীকার করলে সে একটি ছুরি তুলে নেয়। তারপর বলল, আমার সাথে বন্ধুত্ব কর, আমাকে ভালবাস, নইলে হাতের রগ কেটে আত্মহত্যা করব তোর চোখের সামনেই। এটা দেখে ভয়ে ফোন কেটে দেয় মেয়েটি।

মেয়েটির অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযুক্ত মনোজ নেপালির বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর তাকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত মনোজ নয়ডার আগাপুরের বাসিন্দা। মেয়েটি অনেকবার বকাঝকাও করেছিল। এতদসত্ত্বেও তিনি তার অপকর্ম থেকে বিরত ছিলেন না।

Related posts

৯০ শতাংশ মেয়েরা জানে না যৌন মিলনের করার পর ছেলেদের মাথায় কি ঘোরে! রইলো উত্তর

News Desk

ঘরের মধ্যে নগ্ন অবস্থায় ছেলের বন্ধু ও তার প্রেমিকা! বাবা বাধা দিতে যা ঘটালো ছেলে

News Desk

বয়ঃসন্ধিকালে পৌঁছলেই এই রহস্যময় গ্রামের মেয়েরা হয়ে যায় ছেলে! কেন?

dainikaccess