Dainik Sangbad – দৈনিক সংবাদ
Image default
ট্রেন্ডিং স্বাস্থ্য

আপনি রান্নায় যে তেল ব্যাবহার করছেন সেটা খাঁটি তো? জেনে নিন সহজ পরীক্ষার মাধ্যমে!

আমাদের চারিপাশে এখন প্রায় সব কিছুই ভেজাল। এই ভেজালের দরুন শরীরে যে কত ক্ষতিকারক বস্তু ঢুকে গেছে তার কোনও হিসেব নেই। প্রত্যেক দিনের এই ভেজাল শরীরে যাওয়ার জন্য যে কত গভীর ভাবে শরীরের ক্ষতি হচ্ছে তা ভাববার বিষয়।

সবুজ রং মেশানো জলে পটল ডোবানো হয়, ক্ষতিকারক নানা গুঁড়ো হলুদ গুঁড়োয় মেশানো থাকে। খানিকটা হলেও সেগুলো পরীক্ষা করে যাচাই করে নেওয়া যায় নানা পরীক্ষার মাধ্যমে যে, কোনও ভেজাল কোথাও আছে কি না। কিন্তু তা কি করা সত্যিই সম্ভব তেলের ক্ষেত্রে?

রান্নার এক অবিচ্ছেদ্য অংশ তেল । তেল ছাড়া অচল সে স্যালাডের জন্য ড্রেসিং তৈরি করা থেকে শুরু করে ভাজা ভুজি, তরকারি, চচ্চড়ি, এমনকি টক কিংবা অম্বলের ফোড়ন পর্যন্ত। আবার তেল লাগবেই অনেক ডিজার্ট বানানোর সময়েও। আবার কত শত রকমের তেল বাজারচলতি।কোনটা ছেড়ে কোনটা খাওয়া উচিত, তা নিয়ে নানা মত কারণ বাজারে অনেক রকমের তেল আছে জামিন সরষের তেল, সয়াবিন তেল, সানফ্লাওয়ারের তেল, অলিভের তেল, নারকেলের তেল, তিসির তেল ইত্যাদি। পরিবেশের ওপর কে কোন তেল বাছবেন তা খানিক নির্ভর করে। অবশ্য ভারতে বসেও লোকে দেদার অলিভ অয়েল খায় বিশ্বায়নের যুগে । সেখানে ব্যক্তিগত রুচির প্রসঙ্গ জড়িয়ে যায় ।

তবে যে তেলই খান না কেন, ভেজাল আছে কি না বুঝবেন কী করে তার মধ্যে? সরষের তেল যা-ও বা কাঁচা খাওয়া যায় রান্না বিশেষে এবং ঝাঁঝ ও স্বাদ থেকে খানিক সরষের তেলের গুণ ও কোয়ালিটি আন্দাজ করা যায় । কিন্তু এ ভাবে বোঝা সম্ভব হয় না বাকি তেলের বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই । সে ক্ষেত্রে আপনার তেল খাঁটি না কি তাতে মেশানো আছে ভেজাল বুঝবেন কী করে। এর জন্য বাড়িতে একটা সহজ পরীক্ষা করতে পারেন নিজেই।

সম্প্রতি নিজেরাই আপলোড করেছে এফ এস এস এ আই, এই পরীক্ষাটির একটি ভিডিয়ো। একই তেলের দুটো কোয়ালিটি বা আলাদা ব্র্যান্ডের বেছে নিন এই পরীক্ষার জন্য। এ বার দুই ধরনের তেল পাশাপাশি রাখুন কাচের গ্লাসে। দুটো কিউব কেটে নিন যে কোনও এক রকমের খাঁটি মাখনের ব্লক থেকে । একটি করে কিউব ঢেল দিন এ বার দুটো গ্লাসের প্রত্যেকটিতে।

যদি কিছু ক্ষণ পরে দেখেন যে, আস্তে আস্তে বদলে লালচে হতে শুরু করেছে একটি তেলের রং , তা হলে বুঝবেন সেই তেলে ভেজাল মেশানো আছে। মাখন দেওয়ার পরেও অন্য যে গ্লাসের তেল রং বদলায়নি, সেটিই খাঁটি তেল।

এ ভাবে নিজেই কোন তেল খাঁটি, আর কোন তেল খারাপ সহজে পরখ করে নিতে পারেন । তবে বেশি খাওয়া উচিত নয় তেল খাঁটি হলেও। আসলে শরীরেরই বিপদ ডেকে আনে রান্নায় অতিরিক্ত তেল। তাই তেল নির্বাচনের পাশাপাশি সে বিষয়েও সচেতন হোন যে কতটা তেল খাবেন,।

Related posts

লঙ্কা খেলে ঝাল লাগে কেন? মানুষের ঝাল লাগলেও পাখি অনায়াসে খেয়ে নেয় কি করে?

News Desk

যেন ‘থ্রি ইডিয়টস’ ছবির দৃশ্য! মোবাইলের আলোয় করানো হল মহিলার প্রসব! জন্ম নিল সন্তান

News Desk

শীত কাল এলেই ঠোঁট ফাটার সমস্যায় জেরবার? রেহাই পেতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি

News Desk
0 0 votes
Article Rating
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x