Dainik Sangbad – দৈনিক সংবাদ
Image default
FEATURED ট্রেন্ডিং

অলক্ষেই দেহের হাড় গলিয়ে দিচ্ছে করোনা ভাইরাস, কতটা বিপজ্জনক হতে পারে মানুষের জন্য?

করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠা মানুষ অনেক সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। এর মধ্যে শ্বাসকষ্ট, দুর্বলতা ও হৃদরোগ ইত্যাদি নানা ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে। কোভিডের চিকিৎসার সময় স্টেরয়েড গ্রহণের কারণে কালো ছত্রাকের মতো বিপজ্জনক রোগ ছড়িয়ে পড়ে, যা চোখের ক্ষতি করেছে। এখন এসব স্টেরয়েডের প্রভাব শরীরের হাড়েও দেখা যাচ্ছে। যারা কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন তারা হাড়ের রোগেও আক্রান্ত হচ্ছেন। যাকে বলা হয় অ্যাভাসকুলার নেক্রোসিস। এটি হাড়ের একটি বিপজ্জনক রোগ, এতে হাড় গলতে শুরু করে। তাই একে ডেথ অফ বোনও বলা হয়।

করোনার চিকিৎসার সময় যাদের বেশি পরিমাণে স্টেরয়েড দেওয়া হয়েছিল তারাই এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। এতে হাড়গুলো সম্পূর্ণ নষ্ট হয়ে যায়। নিতম্বের হাড়ে এই রোগ হচ্ছে। কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় বিপুল সংখ্যক রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল। অনেক ক্ষেত্রেই তাদের স্টেরয়েড জাতীয় ওষুধ দেওয়া হয় চিকিৎসার জন্য। তার ফলাফল এখন বেরিয়ে আসছে। কোভিডের সময় যে রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল তার মধ্যে অনেকেই অ্যাভাসকুলার নেক্রোসিসে ভুগছেন।

এতে নিতম্বের হাড়ে রক্ত সঞ্চালন ঠিকমতো হয় না। এর কারণে হাড়ের টিস্যু মরতে শুরু করে। এই রোগ হাড় নষ্ট করে দেয়। শুরুতে এই সমস্যার লক্ষণও জানা যায় না এবং ধীরে ধীরে নিতম্বের হাড় নষ্ট হতে থাকে।

AIIMS-এ ১৫০টি কেস সামনে এসেছে

অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেস (AIIMS), নয়াদিল্লির ট্রমা সেন্টারের প্রধান ডাঃ রাজেশ মালহোত্রা বলেছেন যে কোভিডের পরে অ্যাভাসকুলার নেক্রোসিসের ঘটনা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। AIIMS-এ এই রোগের প্রায় ১৫০টি কেস রিপোর্ট করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৫ জন রোগীকে হিপ প্রতিস্থাপনের অস্ত্রোপচার করতে হয়েছে। চিকিত্সকরা বলছেন, কোভিডের আগে এই রোগের ঘটনা খুব কম ছিল, কিন্তু মহামারীর পরে রোগীর সংখ্যা দুই গুণেরও বেশি বেড়েছে এবং যদি এইরকম কেস বাড়তে থাকে তবে এই রোগটি খুব বিপজ্জনক প্রমাণিত হতে পারে।

উপসর্গের দিকে মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন

অর্থোপেডিক সার্জন ডাঃ নিতিন কুমার বলেছেন, করোনার সময় যাদের হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে, তাদের স্বাস্থ্যের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত। কারো যদি উরু ও নিতম্বের হাড়ে প্রচণ্ড ব্যথা হয়, হাঁটতে অসুবিধা হয় বা জয়েন্টে ব্যথার সমস্যা হয়, তাহলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। যাদের আগে থেকেই আর্থ্রাইটিস আছে তাদের বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। যদি আর্থ্রাইটিসের চিকিৎসা এবং কোভিড দ্বারা সংক্রমিত দুটোই হয়ে থাকে, তাহলে নিতম্বের ব্যথাকে একেবারেই উপেক্ষা করবেন না, এটি AVN-এর লক্ষণ হতে পারে।

বয়স্কদের এই বিষয়ে বিশেষ যত্ন নেওয়া দরকার। কারণ বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হাড় দুর্বল হতে শুরু করে এবং AVNA রোগ হলে অবস্থা খুব খারাপ হয়ে যেতে পারে।

Related posts

চকলেট দেওয়ার কথা বলে বাড়িতে ডাকত পাড়ার দাদু! ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার হল দুই নাবালিকার

News Desk

IPL খেলোয়াড় সন্দীপ লামিছনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের গুরুতর অভিযোগ! FIR দায়ের করলো পুলিশ

News Desk

৬ বছরের নিখোঁজ শিশুকে পরদিনই বাড়িতে নিয়ে এল এক ব্যাক্তি! প্রকাশ্যে এল মর্মান্তিক সত্য

News Desk